চতুর্থ পরীক্ষাতেও কনিকার শরীরে করোনার অস্তিত্ব

0
চতুর্থ পরীক্ষাতেও কনিকার শরীরে করোনার অস্তিত্ব
চতুর্থ পরীক্ষাতেও কনিকার শরীরে করোনার অস্তিত্ব

চার নম্বর পরীক্ষাতেও বলিউড গায়িকা কনিকা কাপুরের শরীরে পাওয়া গেছে করোনাভাইরাস। এতে উদ্বিগ্ন গায়িকার পরিবার। তাঁদের দাবি, চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছেন না কনিকা। গত ২০ মার্চ থেকে লখনউয়ের হাসপাতালে চিকিৎসাধীন তিনি।

জানা গেছে, ৯ মার্চ লন্ডন থেকে দেশে ফেরার পর ১১ মার্চ মুম্বাই থেকে কানপুর এবং তারপর লখনউ পৌঁছান গায়িকা। সেখানেই প্রথম সর্দি-কাশি এবং তারপর জ্বরে আক্রান্ত হন কনিকা কাপুর। এরপর ২০ মার্চ পরীক্ষায় কনিকার শরীরে মেলে কোভিড ১৯।

লখনউয়ের সঞ্জয় গান্ধী পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্সে চলছে কনিকার চিকিৎসা। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বিরক্ত কনিকার তারকাসুলভ আচরণে। বারবার তাঁদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, কনিকার উচিত একজন রোগীর মতো আচরণ করে, চিকিৎসকদের সঙ্গে সহযোগিতা করা।

এ ব্যাপারে কনিকার পরিবারের এক সদস্য জানিয়েছেন, ‘এবার আমরা সত্যিই কনিকা টেস্ট রিপোর্ট নিয়ে চিন্তিত। মনে হচ্ছে কনিকা চিকিত্সায় কোনওরকম সাড়া দিচ্ছেন না, আর লকডাউনের এই পরিস্থিতিতে কনিকা এয়ারলিফট করে চিকিৎসার জন্য অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়া সম্ভবকর নয়। আমরা শুধু ওর সেরে উঠবার জন্য প্রার্থনা করতে পারি’।

যদিও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, কনিকার পরিস্থিতি স্থিতিশীল রয়েছে।